ফরমালিন যুক্ত আম চেনার উপায়


আমের মৌসুমে বাজারে হাত বাড়ালেই দেখা যায় কাঁচাপাকা নানা রকম আম। তবে এখন ভেজাল খাবারে বাজার সয়লাব। একের পর এক চলছে ভেজালের বিরুদ্ধে অভিযান। তবুও বন্ধ হচ্ছে না এই ভেজাল। অসাধু ব্যবসায়ীরা একের পর এক খাবারে ভেজাল দিয়েই যাচ্ছে। তাই আম কিনার আগে আমের ভিতরে ফরমালিন আছে কিনা তা যাচাই করে কিনাই একমাত্র সমাধান। অসাধু ব্যবসায়ীরা আম বেশি দিন টিকিয়ে রাখার জন্য আমের ভিতর ফরমালিন দিয়ে থাকেন। যা আমাদের দেহের জন্য মারাত্মক ক্ষতিকারক।
আপনি আম কিনতে গিয়ে বুঝে উঠতে পারেন না কোন আমে ফরমালিন আছে আর আমে ফরমালিন নেই।
কিছু অসাদু ব্যবসায়ীরা  এ সময়ে অধিক লাভের আশায় অল্প সময়ে রাসায়নিক পদার্থ দিয়ে আম  পাকিয়ে থাকে। তাইআম যেখানে শরীরের জন্য উপকার হওয়ার কথা সেখানে ক্ষতির সম্ভাবনাই বেশি।
চলুন জেনে নেই রাসায়নিক মুক্ত আম চেনার উপায় :

১. স্বাভাবিক ভাবেই আমের উপর মাছির আনাগোনা দেখা যায়।  তবে রাসায়নিকভাবে পাকানো আমের উপর মাছি বসে না। তাই  আম কেনার সময় খেয়াল করতে হবে আমের  এর উপর মাছি আছে কিনা। 

২. সাধারণত গাছ পাকা আমের গায়ে সাদাটে ভাব থাকে তবে রাসায়নিকভাবে পাকানো আম পরিষ্কার এবং উজ্জ্বল থাকে।

৩. আমা কেনা হলে এমন কোথাও রেখে দিন যেখানে বাতাস নেই। গাছ পাকা আম হলে চারদিকে গন্ধ ছড়াবে তবে রাসায়নিকভাবে পাকানো আমি এইভাবে গন্ধ ছাড়বে না। 

৪. গাছ পাঁকা আমের রং দেখতে আলাদা। গোঁড়ার দিকে একটু গাঢ় রঙ। তবে রাসায়নিক ভাবে পাকানো আম হলদে রঙের হয় এবং আমের ত্বক মসৃণ ও সুন্দর হয়। 

৫.  আম কিনার সময় নাকের কাসে নিয়ে ভালোভাবে শুকে নিন , গাছ পাকা আম হলে পরিচিত গন্ধ পাবেন।রাসায়নিক ভাবে পাকানো আমে বেশি দিন গন্ধ না।